বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ০১:৩৫ পূর্বাহ্ন
নোটিশ
Wellcome to our website...

করোনাভাইরাস; বাংলাদেশে আরো ৪ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত, এদের দু’জন চিকিৎসক

টুডে ডেস্ক প্রতিবেদন।।
আপডেট : শুক্রবার, ২৭ মার্চ, ২০২০

বাংলাদেশে আরো চার জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর।

নতুন চারজন রোগীর মধ্যে দু’জন চিকিৎসক, যারা করোনভাইরাস আক্রান্ত রোগীদেরে চিকিৎসা দিয়েছিলেন।

নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে একজনের বয়স ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, একজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ এর মধ্যে, একজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ এবং অপরজন ৫১ থেকে ৬০’এর মধ্যে।

এদের মধ্যে দু’জন ঢাকার, আর দু’জন ঢাকার বাইরের।

দু’জনের মধ্যে অন্যান্য রোগের উপসর্গ থাকলেও নতুন শনাক্ত চারজনের কারো মধ্যেই জটিলতা নেই বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর-এর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

এনিয়ে বাংলাদেশে মোট ৪৮ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হলো।

করোনাভাইরাস নিরাপত্তায় যে সতর্কতা প্রয়োজন

এদের মধ্যে পাঁচজন মারা গেছেন ও ১১ জন এরই মধ্যে সুস্থ হয়েছেন। অর্থাৎ এই মুহুর্তে চিকিৎসাধীন কোভিড-১৯ রোগী আছেন ৩৩জন।

গত ৮ই মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসে। এরপর ১৮ই মার্চ প্রথম ব্যক্তির মৃত্যুর কথা জানায় আইইডিসিআর।

বুধবার প্রথমবারের মত সংস্থাটি জানায় যে ঢাকায় সীমিত আকারে কম্যুনিটি সংক্রমণ হচ্ছে বলে তারা সন্দেহ করছে।

সারাদেশে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের অনেকেই কোভিড-১৯ এর উপসর্গ নিয়ে আইইডিসিআরের সাথে যোগাযোগ করেছেন বলে জানান মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

“চিকিৎসক যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের কেউ কেউ রোগীর চিকিৎসা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন, আবার কেউ কেউ কমিউনিটির অংশ হিসেবে সংক্রমিত হয়েছেন। সব চিকিৎসক যে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন, তা নয়।”

আইইডিসিআরের পরিচালক জানান করোনাভাইরাস আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মধ্যে থাকায় তাদের নমুনা সংগ্রহ করে তখনই পরীক্ষা করছেন তারা।

এতদিন পর্যন্ত শুধুমাত্র আইইডিসিআরে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হতো। তবে ঢাকা ও চট্টগ্রামের আরো তিনটি জায়গায় পরীক্ষা করা শুরু হয়েছে বলে জানান আইইডিসিআরের পরিচালক।

“চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইনফেকশাস অ্যান্ড ট্রপিকাল ডিজিজ (বিআইটিআইডি), ঢাকার জনস্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান ও ঢাকা শিশু হাসপাতালে পরীক্ষা শুরু হয়েছে।”

মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান দ্রুত নমুনা সংগ্রহ করার উদ্দেশ্যে এখন থেকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর নমুনা হাসপাতালেই সংগ্রহ করা হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন::
error1
Tweet 20
fb-share-icon20


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর::