শিরোনাম::
কক্সবাজার পৌরসভায় জমির বিরোধ নিয়ে ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাদের অস্ত্র মহড়া ও গুলি বর্ষণ আহত ১৫ টেকনাফের বাহারছড়ায় দুগ্ধজাত শিশু রেখে মা উধাও বিজিবি অভিযান চালিয়ে লেদা সীমান্ত থেকে সাড়ে ৩ লাখ ইয়াবা উদ্ধার উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব সভাপতি’র কৃতজ্ঞতা সিইএইচআরডিএফ’র বিশ্ব শান্তি দিবস উদযাপন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হোয়াইক্যং ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হবেন হেলাল সিকদার। হ্নীলায় জনগুরুত্বপূর্ণ ষ্টেশন-পুরান বাজার সড়ক দ্রুত সংস্কার দাবী। টেকনাফের রঙ্গিখালীতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত তৈয়বের দাফন সম্পন্ন ; ঘাতকদের দ্রুত গ্রেফতার দাবী মোবাইল চুরির অভিযোগে ‘অপু ভাই’য়ের সহযোগী গ্রেফতার যাচাই.কমে ৩৬ টাকা কেজিতে মিলবে পেঁয়াজ!
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

এবার দুদকে ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে বোনের অভিযোগ!

প্রতিবেদক::
আপডেট : শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশের বিরুদ্ধে এবার তার বোন দুর্নীতি দমন কমিশনে কোটি টাকার সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগ করেছেন।

শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুদকের চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন জানান, টেকনাফে সাবেক সেনা কর্মকর্তা হত্যার অন্যতম আসামি ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে তার সৎ বোন রত্নাবালা প্রজাপতি মঙ্গলবার দুদক সমন্বিত অঞ্চল, চট্টগ্রাম-১ এর কার্যালয়ে কোটি টাকার সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে বলা হয়, প্রদীপ তার ক্ষমতার অপব্যবহার করে চট্টগ্রাম মহানগরীর মুরাদপুর মোহাম্মদপুর এলাকায় রত্নাবালার ১২ শতক জমি ও একটি চার তলা ভবন দখল করে নেয়। এর মধ্যে ১২ শতক জমিটি প্রদীপ তার স্ত্রী চুমকি কারনের নামে ১ কোটি ৩০ লাখ টাকায় কিনেছেন বলে রেজিস্ট্রি বায়না করা হয়। কিন্তু বায়না অনুযায়ী একটাকাও পাননি রত্নাবালা।

অভিযোগের বিবরণে রত্নাবালা বলেন, আমার বাবা ছিলেন প্রেমলাল প্রজাপতি। মা যুগলরানী প্রজাপতি। আমরা দুই বোন।

বোনটি অল্প বয়সে মারা যায়। আমার বাবার মৃত্যুর পর হরেন্দ্র লাল দাশ নামে এক ব্যক্তিকে বিয়ে করেন মা। ওই সংসারে প্রদীপসহ তিন সন্তান রয়েছে।

উত্তরাধীকার হিসেবে বাবার ১২ শতক জমি ও চার তলা ভবনটির একমাত্র মালিক আমি। কিন্তু ২০১৪ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর প্রদীপ দাশ ওই জমি জোরপূর্বক দখল করে নেন। পরবর্তীতে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার স্ত্রী চুমকি কারনের নামে রেজিস্ট্রি বায়না করে নেন। এতে ১ কোটি ৩০ লাখ টাকায় ওই জমি বায়না করেছে বলে উল্লেখ করা হলেও তার একটি টাকাও দেননি প্রদীপ। ওই জমিতে প্রদীপ ৯টি সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দিয়েছেন।

পরবর্তী সময়ে প্রদীপ পৈতৃক সূত্রে পাওয়া মুরাদপুর এলাকার চার তলা ভবনটিও দখল করে নেন। প্রদীপ তার কুকর্মের সহযোগী আলী আকবর নামে এক ব্যক্তিকে দিয়ে ওই বাড়িটি বর্তমানে দখলে রেখেছেন। আলী আকবর ইয়াবা মামলায় ৯ মাস জেলও খেটেছেন।

রত্নাবালা বলেন, সম্পত্তি দখল করতে প্রদীপ আমার ছেলে বিবেক রঞ্জন চৌধুরীকে সাজানো নারী নির্যাতন মামলার আসামি করেছে। নিলুফা নামে টেকনাফের এক নারীকে দিয়ে এ মামলাটি করায়। মামলায় আমার ছেলেকে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। আমার মেয়ে বেবী চৌধুরীকেও নানা লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়েছে। তাদের হামলায় বেবী চৌধুরী আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তিও ছিল।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে গত ৫ অগাস্ট কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম (টেকনাফ-৩) আদালতে নয় পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। এরপর থেকে আলোচিত প্রদীপের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ উত্থাপিত হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর::