টেকনাফে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহ বধুর উপর তিন দেবরের হামলা! গর্ভের সন্তান নষ্ট |

শেয়ার করুন-

আবদুল লতিফ বাচ্চু।
পারিবারিক কলহের জের ছোট ভাইয়ের সুন্দরী স্ত্রীর উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে ৩ সহোদরের এবং স্ত্রী স্বামীর প্রতি আনুগত্যশীল হওয়ায় বাকি সহোদরের জন্য কাল হয়ে দাঁড়ায় পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা রুজিনা আক্তারের।

তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে রোজিনা আখতার (২২) এর উপর চলে অমানুষিক অত্যাচার ও নির্যাতন। অবশেষে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে
পিতার বাড়িতে চলে যায়। এর আগে স্বামী ফরিদ হোসনকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধারালো অস্ত্রের হামলায় সে মাথায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এ ঘটনা যেতে না যেতেই ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা রোজিনা আক্তার কে দেবর গং ৫ সেপ্টেম্বর দুপুর ২ টায় পারিবারিক কলহের জের ধরে উপর্যপুরি রোজিনার পেটে লাথি মারে এবং আঘাত প্রাপ্ত হলে পরে ৫ মাসের মৃত সন্তান প্রসব করে। ৯ সেপ্টেম্বর স্বামী ফরিদ হোসেন সহ স্থানীয় কয়েকজন লোক টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসলে গুরুতর আহত রুজিনা আক্তারকে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থা বেগতিক দেখে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।
এক বছর আগে বাহারছড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ফরিদ হোসেন এর সাথে উত্তর শিলখালীর খুইল্যা মিয়া প্রকাশ লালুর মেয়ে রোজিনা আক্তার এর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রীর সুখ শান্তি দেখে তার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে পড়ে অপরাপর ভাই গন।
এর পর চলে সহোদরের কলহের যাতনা। এ নিয়ে চলে আসছে সহোদরের মধ্যে বল প্রয়োগ ও মানসিক যন্ত্রণা। ঘটনার নেপথ্যে জানা গেছে, ছোট ভাইয়ের স্ত্রী রুজিনা আক্তার কে মেনে নিতে পারছে না আপন সহোদর ভইয়েরা। রোজিনা আক্তার এর স্বামী ফরিদ হোসেন এ ঘটনার জন্য সহোদর ইমাম হোসেন. শাহ আলম মিয়া. আহমদ উল্লাহ ও ছেলে দেলোয়ার হোসেন কে দায়ী করে টেকনো মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।


শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *